গল্প: এভাবেই একদিন

এভাবেই একদিন
দীপেন ভুঁইঞা

এক বনে একটাই বড় পুকুর ছিল। সেই পুকুরের পশ্চিম পাড়ের জল ছিল সবথেকে সুস্বাদু। জঙ্গল সৃষ্টির সেই আদিকাল থেকেই কিছু হরিণ পুকুরের পশ্চিম পাড়ের জঙ্গলে বসবাস করত এবং পান করত সেই পশ্চিম পাড়ের জল।
এই ভাবে কিছুদিন চলার পর একদা একদল শেয়াল এসে পুকুরের পশ্চিম পাড় দখল করতে শুরু করল! হরিণ খুব ভীতু এবং শান্তিপ্রিয় প্রজাতি, তাই নিজের শান্তি রক্ষার্থে কিছুজন প্রাণ দিয়ে এবং কিছুজন প্রাণ বাঁচিয়ে পুকুরের পশ্চিমপাড় থেকে সরে গেল অন্যত্র।
এভাবেই ধূর্ত শেয়ালের দল ক্রমশ পুকুরের পশ্চিম, পূর্ব, দক্ষিণ, উত্তরদিক দখলের জন্য তৎপর হয়ে উঠলো। দিন যায়, কালের ফেরে নিজেদের অস্তিত্ব বিপন্ন হতে দেখে কিছু হরিণ পিছু না হটে, নিজেদের শিঙ দিয়ে পাল্টা মারের জন্য প্রস্তুত হতেই চতুর্দিকে হায় হায়, গেল গেল রব উঠতে শুরু করল।
গাধার দল বলল— হরিণের এটা করা উচিত হয়নি, এটা অন্যায়। আমরা শেয়ালের হয়ে ধর্মঘট করব। আসলে গাধা ভাবে, শেয়ালের হয়ে কথা বললে শেয়াল তার কোন ক্ষতি করবে না।
মহিষের দল বলল— এটা ভারী অন্যায়, দুচারটে হরিণ মরেছে বলে শেয়ালের মত এত সুন্দর একটা প্রজাতির উপর পাল্টা আঘাত করা নিরক্ষরতার পরিচয়! আমরা শেয়ালের হয়ে হরতাল করব। আসলে মহিষ ভাবে, শেয়ালের হয়ে কথা বললে শেয়াল তার কোন ক্ষতি করবে না। শূকরের দল বলল— শেয়াল সংরক্ষণ আশু প্রয়োজন! ভগবানের সৃষ্ট এত সুন্দর একটি জীবের ওপর কোনরকম আক্রমণ আমরা বিরোধিতা করব। আমরা অনশন করব। আসলে শূকর ভাবে, শেয়ালের হয়ে কথা বললে শেয়াল তার কোন ক্ষতি করবে না।
গরু বলল—মারের বদলে পাল্টা মার কখনই সমস্যার সমাধান হতে পারেনা! বসে আলোচনা করা দরকার, সেরকম হলে শেয়ালের সুবিধার জন্য হরিণের পশ্চিমপাড় ছেড়ে দেওয়া উচিত। গরু ভাবে, শেয়ালের হয়ে কথা বললে শেয়াল তার কোন ক্ষতি করবে না।
চেয়ারে বসা কিছু হরিণ বলল— পুর্বপুরুষের ঐতিহ্য ভুলে আমরা হিংসার আশ্রয় নিচ্ছি, এটা অনুচিত। শেয়াল নিতান্ত নিরুপায় হয়েই দুচারটে হরিণ বধ করেছে! তার পরিবর্তে হরিণ প্রজাতির কখনই পাল্টা আঘাত হানা উচিত নয়। আমরা আমাদের স্ত্রী পুত্রদের শেয়ালের কাছে খাদ্য হিসেবে পাঠাবো। চেয়ারে থাকা হরিণের দল ভাবে, শেয়ালের হয়ে কথা বললে তার চেয়ার আরও শক্ত এবং দীর্ঘস্থায়ী হবে।
রাত তখন অনেক গভীর! শেয়ালের দল একে একে শিকার করা হরিণের, শূকর, গরু, গাধা, মহিষের মাংস খেয়ে তৃপ্তির ঢেকুর তুলল। পুকুরের পশ্চিম পাড় থেকে ওঠা সেই আওয়াজ গোটা বনে প্রতিধ্বনিত হতে, প্রজাতি নির্বিশেষে গরু গাধা মহিষ শূকর সকলেই নিজ ডাক ভুলে হুক্কা হুয়ায়ায়া বলে চিৎকার আরম্ভ করল। এভাবেই একদিন…
—সমাপ্ত—

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Soumen Misra

তথ্যভিত্তিক সত্য, কথায় ও লেখায় প্রকাশ পাক।

✆+919932953367

Em@il:- soumenmisra.in@gmail.com


  • gplus

Leave a comment