অভাবের মধ্যে পড়াশুনো চালিয়ে মাধ্যমিকে ৯০ শতাংশ নাম্বার চাঁইপাটের দুই পড়ুয়ার৷

অভাবের মধ্যেই পড়াশুনো চালাতে হয়েছে৷ বাবা-মা কেবল উৎসাহ টুকু দিয়ে ছিলেন৷ আজ মাধ্যমিকের ফল বেরতেই হাঁসি ফুটল দুই পরিবারের সদস্যদের মুখে৷ এই দুই পরিবার হল দাসপুর-২ ব্লকের চাঁইপাটের দে ও বাউর পরিবার৷
চাঁইপাট উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র সুরজিৎ দে এবার ৯৪ শতাংশ নম্বর পেয়েছে৷তাঁর বাবা অসীম দে পেশায় মৃৎ শিল্পী৷সামান্য আয় তবু ছেলেকে নিয়ে স্বপ্ন দেখতেন৷ এখন আগামীদিনে ছেলের পড়াশুনোর খরচ চালাবেন কেমন করে তা নিয়েই চিন্তা ভাবনা শুরু করেছেন৷ সুরজিৎ এর শখ বড় হয়ে রিসার্চ করার৷আপাতত বিজ্ঞান বিভাগে ভর্তি হচ্ছে সে৷
অপর জন চাঁইপাট বালিকা বিদ্যালয়ের বিপাশা বাউর৷ তাঁর মাধ্যমিকে প্রাপ্ত নম্বর ৬৪৪৷ বাবা শ্রীকান্ত বাউরের চাঁইপাট বাজারে ফলের দোকান৷ বিক্রি বাটা যা হয় তাই বেশিরভাগই সংসার খরচে লেগে যায়৷ মেয়ের পড়াশুনোর জন্য তেমন যত্ন নেওয়া সম্ভব হয়নি৷ তবু বাবার মুখে চওড়া হাঁসি ফুটাতে পেরেছে মেয়ে৷বিপাশা চায় রসায়ন নিয়ে পড়াশুনো করতে৷
এদের সাফল্যে খুশি পাড়া প্রতিবেশী থেকে গৃহ ও স্কুল শিক্ষকরা৷

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

সুদীপ্ত শেঠ

আর্থ-সামাজিক বিষয়ে প্রবন্ধ লেখা আমার অন্যতম নেশা।আমার লেখা প্রতিবেদন সংক্রান্ত ব্যক্তিগত মতামত ও পরামর্শ আমার ফোনে বা ইমেলে দেওয়া যাবে।
ফোন:9547128133
ইমেল:sudiptaseth8@gmail.com
  • gplus

Comments

  1. Partha De
    May 29, 2017 at 2:58 pm

    Congratulations !!!

Leave a comment