মেয়ের স্মৃতির উদ্দেশ্যে যাত্রী প্রতীক্ষালয়

প্রায় এক বছর আগে মুম্বাইতে  রেললাইন পার হতে গিয়ে দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়ে ছিলেন বিএ প্রথম বর্ষের ছাত্রী সুমিতা প্রামাণিক। ২০১৬ সালের ১৫ মার্চের সেই দগদগে স্মৃতি আজও ভুলতে পারেননি বাবা স্বপন প্রামাণিক। হয়ত জীবনের শেষ দিন পর্যন্তও তাঁর পক্ষে ভোলা সম্ভব নয় সেই দুর্ঘটনা। তাই তার একমাত্র কন্যার স্মৃতির উদ্দেশ্যে দাসপুর থানার বিষ্ণুপুরে প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনার তৈরি পাকা রাস্তার ধারে গড়ে দিলেন একটি ঝাঁ চকচকে যাত্রী প্রতীক্ষালয়। প্রসঙ্গত, বিষ্ণুপুর গ্রামের স্বপনবাবু কর্মসূত্রে সপরিবারে ভিন রাজ্য মুম্বাইয়ে থাকেন।

ওইদিনের যাত্রী প্রতীক্ষালয়টির উদ্বোধন করেন দাসপুর বিধানসভার বিধায়ক মমতা ভুইঞা।  বিধায়ক ছাড়াও এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিম মেদিনীপুর তৃণমূল কংগ্রেসের জেলাপরিষদ সদস্য তপনকুমার দত্ত, সাহাচক গ্রাম পঞ্চায়েত উপপ্রধান প্রসেনজিৎ দিন্ডা, বুনিয়াদ খাঁ, সেখ কওসের আলি প্রমুখ। বিধায়ক মমতা ভুইঞা তাঁর বক্তব্যে দুর্ঘটনা এড়ানোর জন্য ‘সেফ ড্রাইভ, সেভ লাইফ’ এর প্রসঙ্গ উল্লেখ করেন। এদিন তপন দত্ত একটি আশার বাণী শুনিয়েছেন। তপনবাবু জানান, সাগরপুর  থেকে বিষ্ণুপুর কাঠগোলা পর্যন্ত মোরাম রাস্তাটি এক বছরের মধ্যেই পাকা হবে। এখানে উল্লেখ্য, সাগরপুর স্যার আশুতোষ উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পুকুরের কাছ থেকে বিষ্ণুপুর কাঠগোলা পর্যন্ত প্রায় এক কিলোমিটার রাস্তা দীর্ঘদিন সংস্কারের অভাবে খারাপ হয়ে পড়েছিল। সে সংবাদ আমরা ‘স্থানীয় সংবাদ’-এ করেছিলাম, এবং তারপরই রাস্তাটি মেরামত করা হয়। সে সময় অনেক পথ চলতি মানুষই ‘স্থানীয় সংবাদ’-কে সাধুবাদ জানান।

—সনাতন ধাড়া, সাংবাদিক, ‘স্থানীয় সংবাদ’ • সাগরপুর

Recommend to friends
  • gplus
  • pinterest

About the Author

Leave a comment