বাবার বাসে ছেড়ে পালিয়ে যাওয়া সেই কন্যা সন্তানকে তার মায়ের হাতে তুলে দেওয়া হল

নিজস্ব সংবাদদাতা, স্থানীয় সংবাদ, ঘাটাল: অবশেষে মায়ের কোলে ফিরে এলো বাসে অচেনা যাত্রীর কোলে তুলে দেওয়া সেই শিশু। আজ ১৮ অক্টোবর বিকেলে মেদিনীপুর শহরে চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটির সদস্যদের উপস্থিতিতে মায়ের কোলে শিশুটিকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়। মেয়েকে ফিরে পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স্বস্তি নেমে আসে শিশুর মা সীমা রাউতের। অবসান হয় তিন দিনের নাটকের।আমরা আমাদের ডিজিটাল মিডিয়ার মাধ্যমে আগেই বলেছি, ১৬ অক্টোবার শনিবার দুপুরে বাসে করে পাঁশকুড়া থেকে বাড়ি ফিরছিলেন দাসপুর জগন্নাথপুরের বাসিন্দা এক মাছ ব্যবসায়ী রেবতী ভুঁইয়া। তাঁর কোলে এক যুবক এই শিশুটিকে বসিয়ে দিয়ে অজান্তেই বাস থেকে নেমে চলে যান।রেবতীদেবী শিশুটিকে নিয়ে বাড়ি ফিরলেও তাঁর মন মানেনি। তিনি বিকেলে শিশুটিকে নিয়ে ফের মেচোগ্রামে নিয়ে যান। সেখানও শিশুটির পরিচয় জানতে না পেরে তিনি শিশুটিকে দাসপুর পুলিশের হাতে তুলে দেন। পুলিশ জানায় শিশুটির শারীরিক অবস্থা ভালো না থাকায় তাকে শনিবার দাসপুর হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। দায়িত্ব এড়িয়ে যাননি রেবতীদেবী। সেখানেও তিনি শিশুটিকে কোলের পাশে বসে রাত কাটান।

পরের দিন তথা গত কাল শিশুটির কয়েকটি পরীক্ষা করানোর জন্য ঘাটাল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানো সর্বক্ষণ ছিলেন রেবতীদেবী। ওই দিনই পুলিশ শিশুটির পরিচয় জানতে পারে। পুলিস জানায়, শিশুটির নাম রিয়া রাউৎ। বাবার নাম শ্রীমন্ত রাউৎ এবং মায়ের নাম সীমা রাউৎ। দাসপুর থানার নবীন মানুয়ায় বাড়ি। শিশুটিকে ফিরে পাওয়ার জন্য সীমাদেবী কান্নায় ভেঙে পড়েন।

সীমাদেবী তাঁর কন্যাকে ফেরৎ চাইলেও পুলিশ দিতে পারেনি। কারণ এই ধরনের কেসে উদ্ধার হওয়া শিশুকে চাইল্ডলাইনের হাতে তুলে দিতে হয়। তাই আজ সকালে দাসপুর থানার পুলিস শিশুটিকে চাইল্ডলাইনের ঘাটাল সেন্টার হেড প্রদীপ শাসমল ও সদস্য র্ঝণাদেবীর হাতে রিয়াকে তুলে দেওয়া হয়।  প্রদীপবাবু বলেন, আমরা নিয়ম মতো আজই শিশু, তার মাকে নিয়ে মেদিনীপুর চাইল্ড ওয়েলফেয়ার কমিটিতে যাই সেখানেই শিশুটিকে তাঁর মায়ের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

ঘাটাল মহকুমার সমস্ত আপডেট তে যুক্ত হন আমাদের সাথে!

‘স্থানীয় সংবাদ’ •ঘাটাল •পশ্চিম মেদিনীপুর-৭২১২১২ •ইমেল: [email protected] •হোয়াটসঅ্যাপ: 9933998177/9732738015/9932953367/9647180572/9434243732 আমাদের এই নিউজ পোর্টালটি ছাড়াও ‘স্থানীয় সংবাদ’ নামে একটি সংবাদপত্র, MyGhatalমোবাইল অ্যাপ এবং https://www.youtube.com/SthaniyaSambad ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে।