শুভম চক্রবর্তী: কথায় আছে দুর্ঘটনা কখনো জানিয়ে আসে না। কিন্তু একবিংশ শতাব্দীতে দাঁড়িয়ে উন্নত প্রযুক্তির দৌলতে অনেকক্ষেত্রেই সেই সব দুর্ঘটনা আমরা এড়াতেই পারি। কিন্তু মানুষের মধ্যে এখনও আধুনিক প্রযুক্তি সম্বন্ধে সচেতনতার অভাব এবং সর্বোপরি সহজলভ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের প্রবল অনীহার কারণে সমস্যা থেকে গেছে সেই তিমিরেই।

- Inline advertisement -

সারা বিশ্বে যে সমস্ত প্রাকৃতিক দুর্ঘটনার কারণে অধিক সংখ্যক প্রাণহানি ঘটে তাদের মধ্যে অন্যতম হলো বজ্রপাত। তথ্য অনুসারে সারা বিশ্বে প্রতিবছর বজ্রপাত জনিত কারণে আহত ও নিহত মিলিয়ে সংখ্যাটি দাঁড়ায় কুড়ি হাজার এবং এর মধ্যে ভারতে সংখ্যাটি হাজারেরও বেশি। গত বছর  ভারতের মাত্র পাঁচটি রাজ্যে বজ্রপাতের শিকার হয়েছিলেন ২১৬ জন আর এবছর এই সংখ্যা ৫০ ছুঁই ছুঁই। আমাদের পশ্চিম মেদিনীপুর  জেলার চন্দ্রকোণা থানা, দাসপুর থানার একাংশ এবং  বালিচক, সবং ও জকপুরের  মতো জায়গাগুলিতে ফি বছর বজ্রপাত জনিত দুর্ঘটনার সংখ্যা চমকে দেওয়ার মতো।

‘‘পশ্চিম মেদিনীপুর  জেলার চন্দ্রকোণা থানা, দাসপুর থানার একাংশ এবং  বালিচক, সবং ও জকপুরের  মতো জায়গাগুলিতে ফি বছর বজ্রপাত জনিত দুর্ঘটনার সংখ্যা চমকে দেওয়ার মতো’’

এই সমস্যার থেকে সমাধানের পথ খুঁজতে ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে পুনের আই.আই.টি.এম( ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অফ ট্রপিক্যাল মেটিওরোলজি)  ‘দামিনী’নামক একটি মোবাইল অ্যাপস চালু করে [অ্যাপটির লিঙ্ক: https://play.google.com/store/apps/details?id=com.lightening.live.damini&hl=en]। অ্যাপটির সাহায্যে যেকোনও সময় তৎক্ষণাৎ অতি সহজেই জানা যায় কোথায় সামান্য বজ্রপাত কোথায় অধিক পরিমাণ বজ্রপাত এবং কোথায় বৃষ্টিসহ বজ্রপাত হতে চলেছে। এমনকী এর নবতম সংযোজনে ব্যবহারকারীকে এই অ্যাপস বজ্রপাত হওয়ার বেশ কিছু সময় আগেই বিশেষ সংকেতের মাধ্যমে জানিয়ে দেবে আগাম বজ্রপাতে সূচনা ফলে অনেক ক্ষেত্রেই অগ্রিম সূচনা পেয়ে নিরাপদ স্থানে গিয়ে দুর্ঘটনা এড়ানো সম্ভব হতেই পারে।আর অন্যতম সুবিধা হল যে কোনও স্মার্টফোন ব্যবহারকারী এই অ্যাপসটি অতি সহজেই ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারেন একদম বিনামূল্যে।

কিন্তু দুঃখের বিষয় হলো এখননও আমাদের দেশে তেমনভাবেই সাধারণ মানুষের মধ্যে আধুনিক প্রযুক্তিগত সচেতনতা গড়ে না ওঠার কারণে তেমনভাবে জনপ্রিয় হয়ে উঠতে পারেনি ‘দামিনী’র  মত একটি অতি প্রয়োজনীয় প্রযুক্তি।

তবে আশা করা যায় এই স্মার্টফোনের যুগে আমাদের মহকুমার মানুষও দ্রুত প্রযুক্তির উপভোক্তা হয়ে স্মার্ট হয়ে উঠবেন এবং নিজেদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে আধুনিক প্রযুক্তির পূর্ণ লাভ উপভোগ করবেন। [তথ্যসূত্র: THE HINDU]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here