ছবি আঁকায় রাজ্যে প্রথম ও দ্বিতীয় ঘাটাল মহকুমা থেকেই

মন্দিরা মাজি, ‘স্থানীয় সংবাদ’, ঘাটাল: অঙ্কন প্রতিযোগিতায় রাজ্যে প্রথম হল ঘাটালের বরদা বাণীপীঠ হাইস্কুলের নবম শ্রেণির [‘স্থানীয় সংবাদ’-এর সমস্ত কিছু জানতে এখানে ক্লিক করুন] ছাত্র অরিত্র রায়। আজাদি কা অমৃত মহোৎসব’-কে সামনে রেখে এবং রামকৃষ্ণ মিশনের ১২৫ তম প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে গত ৭ আগস্ট কলকাতার গোলপার্কে রামকৃষ্ণ মিশন ইন্সটিটিউট অফ কালচার তিনটি গ্রুপে অঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিল। ‘খ’ বিভাগে(১২-১৬বছর) অংশগ্রহণ করেছিল অরিত্র। ওই গ্রুপে রাজ্য থেকে মোট ২৩৮ জন অংশগ্রহণ করেছিল তার মধ্যে সে মহাত্মা গান্ধীর গীতা হাতে ছবিটি এঁকে প্রথম স্থান দখল করে সে।    অরিত্র জানায়, সে গোলপার্কে গিয়েই ৭ তারিখে অঙ্কন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে এবং তাকে ৯ আগস্ট বেলুড় মঠ ও মিশনের সহকারী সাধারণ সম্পাদক স্বামী বলভদ্রানন্দজি মহারাজ তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন।
অরিত্রর এই সাফল্যে খুশি তার অঙ্কন শিক্ষক সুমিত বাঙাল। সুমিতবাবু বলেন, ছাত্ররা যখন কোথাও সফল হয় তখন তাদের জন্য পরিশ্রম করাটা সার্থকতা পায়। অরিত্র পড়াশোনাতেও ভাল। অরিত্রর বাবা অজয় রায় এবং মা রূপালি রায় বলেন, আমাদের এক মাত্র সন্তান অরিত্র ছোটবেলা থেকেই ছবি আঁকতে ভালোবাসে।
অন্য দিকে ওই একটি গ্রুপে দ্বিতীয় হয়েছে দাসপুর-২ ব্লকের খেপুত  হাইস্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র পৃথ্বীশ চট্টোপাধ্যায়। তারও হাতে ওই একই অনুষ্ঠান থেকে ওই পুরস্কার তুলে দেন স্বামী বলভদ্রানন্দজি মহারাজ. পৃথ্বীশ ডান দিকের ছবিটি এঁকেছিল। পৃথ্বীশের বাবা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ই তাকে নিয়মিত আঁকা শেখাতে বলে সে জানিয়েছে।

 

ঘাটাল মহকুমার সমস্ত আপডেট তে যুক্ত হন আমাদের সাথে!