বিধায়ক তহবিলের টাকায় বসানো হাইমাস্ট লাইট নিজেদের নামে চালাচ্ছে ঘাটাল পঞ্চায়েত সমিতি: শীতল কপাট

আকাশ দোলই, স্থানীয় সংবাদ, ঘাটাল: বিধায়ক তহবিলের টাকায় বসানো হাইমাস্ট লাইটে বিধায়কের নাম উহ্য রেখে নিজেদের নামে চালানোর অভিযোগ উঠল তৃণমূল পরিচালিত ঘাটাল পঞ্চায়েত সমিতির বিরুদ্ধে। সরকারি কাজে তৃণমূলের স্টিকার লাগানোর অভিযোগ তুলে সরব হলেন ঘাটালের বিধায়ক শীতল কপাট। ঘাটালে বরদা বিশালাক্ষী মন্দিরের মোড়ে একটি হাইমাস্ট লাইট বসানো হয়েছে ২০২১-২০২২ অর্থবর্ষে BEUP তথা বিধায়ক এলাকা উন্নয়ন প্রকল্পের তহবিল থেকে ৩ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা ব্যয় করে। যা রূপায়ন করে তৃণমূল পরিচালিত ঘাটাল পঞ্চায়েত সমিতি। বিধায়ক তহবিলের টাকায় এলাকা উন্নয়নের কোনও কাজ হলে সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট বিধায়কের নাম এবং বিধানসভার নাম উল্লেখ করতে হয়। কিন্তু ওই এলাকায় হাইমাস্ট লাইটটি বসানোর ক্ষেত্রে বিধায়কের নাম উল্লেখ করা হয়নি। নাম উহ্য রাখা হয়েছে। ওই এলাকায় গিয়ে তা দেখে এসেছেন বিধায়ক শীতল কপাট। আর এতেই ঘাটাল পঞ্চায়েত সমিতির বিরুদ্ধে সরব হন বিধায়ক। বিধায়ক জানান, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনাকে বাংলার আবাস যোজনা, প্রধানমন্ত্রী সড়ক যোজনাকে বাংলার সড়ক যোজনা নাম দিয়ে কেন্দ্রীয় প্রকল্পগুলিকে নিজেদের নামে চালানোর অভিযোগ তো ছিলই তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে। যা নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য টানাপোড়েন। যে কারণে কেন্দ্রীয় সরকার ওইসব প্রকল্পের জন্য বরাদ্দ করা অর্থ বন্ধ করে দেয়।

ঘাটাল পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি দিলীপ মাজি এই ঘটনার উত্তরে জানান, এমনটা মোটেই নয়। কোথাও ভুল হচ্ছে হয়তো শীতল বাবুর। এর আগেও যাঁরা বিধায়ক ছিলেন তাঁদেরও কারও নাম দেওয়া হত না। তাই বিষয়টি সম্বন্ধে একটু খোঁজ নিয়ে উনি মন্তব্য করলে ভালো হয়।

ঘাটাল মহকুমার সমস্ত আপডেট তে যুক্ত হন আমাদের সাথে!

‘স্থানীয় সংবাদ’ •ঘাটাল •পশ্চিম মেদিনীপুর-৭২১২১২ •ইমেল: [email protected] •হোয়াটসঅ্যাপ: 9933998177/9732738015/9932953367/9647180572/9434243732 আমাদের এই নিউজ পোর্টালটি ছাড়াও ‘স্থানীয় সংবাদ’ নামে একটি সংবাদপত্র, MyGhatalমোবাইল অ্যাপ এবং https://www.youtube.com/SthaniyaSambad ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে।