চন্দ্রকোণায় সাহিত্য সম্মেলন

গণেশ দাস: সাহিত্য সম্মেলন করল মেদিনীপুর সাহিত্য সংসদ। আজ ১৫ মার্চ চন্দ্রকোণা শহরের ঠাকুরবাড়ি অতসী স্মৃতি হাইস্কুলে সাহিত্য সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের সভাপতি ছিলেন তারাপদ বিশুই৷ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি ছিলেন যথাক্রমে শ্রীকান্ত পাত্র ও ডাঃ সুখেন্দুবিকাশ মাইতি৷ এছাড়াও ড রেণুকা মাজি,শান্তিপাহাড়ি, মানিকলাল ভট্টাচার্য প্রমুখ৷ স্বাগত ভাষণ দেন সংসদের প্রতিষ্ঠাতা তথা সম্পাদক ডাঃ সুদর্শণ রায়৷ তিনি বলেন, প্রতি বছরের মতো এই বছেরর অনুষ্ঠানও দুই বাংলার সাহিত্য সংস্কৃতির মেলবন্ধনেই অনুষ্ঠিত হয়েছে৷ কিন্তু খুবই দুঃখ জনক যে বাংলাদেশ থেকে যাঁদের আসার কথা তাঁরা করোনার কারণে ভিসা পাননি। তাই তাঁরা আসতে পারেরননি৷ তবে তাঁরা শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়েছেন
যদিও বাংলাদেশ থেকে কবি ও সাহিত্যিকেরা আসতে পারেননি তবুও আজকের অনুষ্ঠানে দুই মেদিনীপুরের শতাধীক কবি ও সাহিত্যিক করোনা আতঙ্ককে উপেক্ষা করে কেবলমাত্র সাহিতত্যের টানে চন্দ্রকোণার সাহিত্য সম্মেলনে উপস্থিত হয়েছিলেন। অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠে প্রবীণদের মধ্যে ছিলেন রামকৃষ্ণ রানা, বিষ্ণুপদ আচার্য, মুক্তি ঘোষ, গোকুল মাইতি, অনুপম ভট্টাচার্য, রঘুপতি বাপলি প্রমুখ৷ এছাড়াও নবীন কবিদের মধ্যে ছিলেন মৌপর্ণা মুখোপাধ্যায়, কাকলী হাজরা, শঙ্খরাজ মণ্ডল, গুরুপদ মণ্ডল, গণেশ দাস প্রমুখ৷ অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ছিলেন জিতেন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়৷উল্যেখ্য এই অনুষ্ঠানে ৯ জন কবিকে ‘জীবনানন্দ স্মৃতি সাহিত্য’ পুরস্কার ও এক জন আঞ্চলিক ইতিহাস গবেষককে ‘কানাইলাল দীর্ঘাঙ্গী স্মৃতি’ পুরস্কার প্রদান করা হয়৷ অনুষ্ঠানে কবিতা পাঠ ও সাহিত্য সম্মান প্রদান ছাড়াও, সঙ্গীত পরিবেশন, পুরাকীর্তি আলোকচিত্র প্রদর্শনী, পুস্তক ও পত্রিকা প্রদর্শন করা হয়।

সব খবর পড়তে আমাদের WhatsApp গ্রুপে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন