বেতন বঞ্চনার অভিযোগ তুলে আবারও পথে নামছে রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষক শিক্ষিকারা

আবারও একাধিক বঞ্চনার অভিযোগ তুলে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে রাজ পথে বিক্ষোভ কর্মসূচি নিলেন রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষক শিক্ষিকারা। উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ্যে ১১ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত বিধাননগর উন্নয়ন ভবনের সম্মুখে অবস্থান বিক্ষোভে সামিল হচ্ছেন তাঁরা। ওই সংগঠনের পক্ষ্যে ইতিমধ্যেই জেলায় জেলায় প্রাথমিক শিক্ষক শিক্ষিকারা লক্ষাধিক বেতন কাঠামোর অপশন ফর্ম পূরণ করেছেন।

তাঁদের দাবি ২০১৯ সালের ২৬ জুলাই প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তির সঠিক ক্লারিফিকেশন এবং ২০০৬ সালের জানুয়ারি থেকেই নোশানাল এফেক্ট অনুযায়ী বেতন কাঠামো। ওই সংগঠনের রাজ্য সভাপতি সন্দীপ ঘোষ বলেন,প্রাথমিকে বেতন বঞ্চনা নিরসনে UUPTWA তার লক্ষ্যে অবিচল রয়েছে। শিক্ষা দপ্তরে বারবার জানানোর পর ও প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য সুনির্দিষ্ট কোনো বেতন কাঠামো সরকার এখনও স্থির করতে পারেনি, এই অস্থির সময়ে আমরা আবার ডাক দিয়েছি আন্দোলনের। আমরা জানি যে কোনো প্রক্রিয়ার শুরুতে আন্দোলন সেই প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করে।

সারা রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষক ও  শিক্ষিকাদের এই আন্দোলন সফল করতে এগিয়ে আসতে অনুরোধ করছেন। আমাদের উদ্দেশ্য হলো লক্ষাধিক Dummy Option Form পূরণ করে সরকারকে জানানো যে সরকার প্রদেয় DCF এর বেসিক সম্পূর্ণ অন্যায্য ও অনৈতিক।তাই আমরা ২৬/০৭/২০১৯ এর অর্ডারের সঠিক Clarification যা হওয়া উচিত অর্থাৎ ১/১/২০০৬ থেকে Notional Effect অনুযায়ী সঠিক বেতনের হিসাব নির্দিষ্ট দপ্তরে পৌঁছে দেবো। সেই সঙ্গে এটাও জানাবো যে এই Dummy Option Form পূরণ আসলে পশ্চিমবঙ্গের ১লক্ষ ৮৭হাজার ৩শত১৪ প্রাথমিক শিক্ষক ও শিক্ষিকার ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ। প্রাথমিক শিক্ষকদের সঠিক বেসিক নির্ধারণে সরকার যে অসঙ্গতি দেখিয়েছেন তার বিরুদ্ধে আদালতে যাওয়ার প্রারম্ভিক কাজ হিসাবে গণ্য হবে এই আন্দোলন। আমাদের আবেদন প্রতিটি জেলা কমিটি সঠিক বেসিক নির্ধারণে সাধারণ শিক্ষকদের পাশে থাকুন।

এই আন্দোলনের লক্ষ্যে আগামী ১১ ফেব্রুয়ারি  বেলা ১২টা থেকে ৫টা পর্যন্ত বিধাননগর উন্নয়ন ভবনের সামনে অবস্থান ধর্ণা ও শিক্ষামন্ত্রীর নিকট ডেপুটেশন ও অপশন ফর্ম জমা দেওয়ার কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি শিক্ষক শিক্ষিকাদের উদ্দেশ্যে বলেন,আপনারা প্রত্যেকে ১/১/০৬ থেকে Notional effect অনুযায়ী Dummy Option Form পূরণ করে উক্ত কর্মসূচিতে সক্রিয় ভাবে অংশগ্রহণ করবেন। এই ফর্মগুলি আমরা সাংগঠনিকভাবে শিক্ষা দপ্তরে পৌঁছে দেবো।