পাঁঠা বলি, ফিষ্ট ও ডিজে’র তালে তৃণমূলের শহিদ দিবস পালন দেখে তাজ্জব সবাই

চৌধুরী সামসুল আলম, স্থানীয় সংবাদ, ঘাটাল: (মো: ৯৭৩২৯৬৮৬৭৩) শহিদ দিবস কথাটার মধ্যে একটা আবেগ জড়িয়ে থাকে। জড়িয়ে থাকে শহিদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা।  জড়িয়ে থাকে স্বজন হারানোর মর্মবেদনা। আমরা এতদিন ধরে একথাটাই জেনে এসেছি। শহিদের রক্তের কোন আলাদা ‌রঙ থাকে না।  শহিদ মানে শহিদই। স্বাধীনতা আন্দোলনে যাঁরা শহিদ হয়েছেন, ভাষা আন্দোলনে‌ যাঁরা শহিদ হয়েছেন, এছাড়া মানবাধিকার রক্ষায় যারা‌ শহিদ হয়েছেন তাঁদের শ্রদ্ধা জানানো হয় মৌনতা, নীরবতা পালন এবং তাঁদের জীবন নিয়ে আলোচনার মাধ্যমে। রাজনৈতিক আন্দোলন করতে গিয়ে যারা শহিদের মৃত্যুবরণ করেছেন তারাও তাদের দলের লোকজনদের কাছে একইভাবে  আবেগ, পুষ্প, শপথের মাধ্যমে সমাদৃত হয়ে এসেছেন।

 

এটা শুধু বাংলায় নয়, সারা পৃথিবীতে এভাবেই শহিদদেরকে মর্যাদা দেওয়া হয়ে থাকে। আজ ২১ জুলাই ২০২১ বুধবার তৃণমূল দলের পক্ষ থেকে শহিদ দিবস পালিত হয়েছে। শুধু আজকেই নয়, প্রতিবছর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই ২১শে জুলাই শহিদ মিনারে সমাবেশের ‌মাধ্যমে‌ শহিদ তর্পণ করেন। ২০১১ বিধানসভায় বিপুল জয়ের পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিগ্রেড ময়দানে ‌সমাবেশ করেছিলেন। সেখানে সিনেমার ডায়লগ থেকে মঞ্চে পাগলু ড্যান্স সবই হয়েছিল। মোচ্ছব হয়েছিল। অনেক জ্ঞানী ও গুনীজন শহিদদের নাম করে এই ধরণের অপসংস্কৃতির বিরুদ্ধে সমালোচনাও করেছিলেন।

 

এবছর লক ডাউন চলছে। ভার্চুয়াল শহিদ দিবস পালন করা‌ হচ্ছে তৃণমূলের পক্ষ থেকে। সেখানে গ্রামে গ্রামে কোথাও মদ ও মাংস সহযোগে  ফিষ্ট, মিছিল করে মন্দিরে গিয়ে  পাঁঠা বলি, কোথাও চটুল হিন্দি গান বাজিয়ে তার সঙ্গে দেদার  বক্স বাজিয়ে শহিদ দিবস পালন, আবার কোথায়ও বা ফুর্তি করে নাচাগানার সাথে উদ্দাম-উচ্ছ্বাস ‘ম’কারের সাধনা চলছে।  শহিদদের নাম করে এধরণের কালচার নতুনভাবে প্রবর্তন করলো সারা দুনিয়ায় একমাত্র তৃণমূল দল।

 

গুরু রজনীশ এক নতুন সিস্টেম তৈরি করে ছিলেন। তিনি তার শিষ্যদের বলতেন মানুষ যখন মরবে তখন যেন বাদ্যসহযোগে তার চার পাশে ঘুরে ঘুরে তাণ্ডব নৃত্য করা হয় এবং তার শিষ্যরা এখনও তাই করে। মানুষ পৃথিবী ছেড়ে চিরবিদায় নেবে। তখন স্ফূর্তি করা সমীচিন কিনা সেটা আপনারাই ঠিক করুন। বঙ্গে তৃণমূল রজনীশের যোগ্য উত্তরসূরি হিসেবে তার সাঙ্গপাঙ্গদের নিয়ে রজনীশের তত্ত্বকে শহীদ দিবসের মাধ্যমে রূপায়ন করছে। বাংলা আজ সুকান্ত, রবীন্দ্র, নজরুলকে ছেড়ে ক্রমশ রজনীশতত্বকেই শীলমোহর দিচ্ছে। এটাই এখন এগিয়ে বাংলা! দলটার মালিক নাকি‌ বাংলার গর্ব!

ঘাটাল মহকুমার সমস্ত আপডেট তে যুক্ত হন আমাদের সাথে!

‘স্থানীয় সংবাদ’ •ঘাটাল •পশ্চিম মেদিনীপুর-৭২১২১২ •ইমেল: [email protected] •হোয়াটসঅ্যাপ: 9933998177/9732738015/9932953367/9647180572/9434243732 আমাদের এই নিউজ পোর্টালটি ছাড়াও ‘স্থানীয় সংবাদ’ নামে একটি সংবাদপত্র, MyGhatalমোবাইল অ্যাপ এবং https://www.youtube.com/SthaniyaSambad ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে।