ভিনরাজ্যে অস্বাভাবিক মৃত্যু মেয়ের,মেয়ের দেহ আসতেই উত্তেজনা

বাবলু মান্না ও সন্তু বেরা, স্থানীয় সংবাদ, ঘাটাল:  ভিন রাজ্যে মেয়ের অস্বাভাবিক মৃত্যু,শ্বশুর বাড়ির তরফে আত্মহত্যা বলা হলেও মানতে নারাজ মেয়ের বাপের বাড়ি। ইতি মধ্যে ভিনিরাজ্যের সংশ্লিষ্ট থানায় এই অস্বাভাবিক মৃত্যুর অভিযোগ দায়েরও হয়েছে।ভিন রাজ্য থেকে আজ বুধবার মৃত মেয়ের দেহ দাসপুর পুলিশে পৌঁছাতেই মেয়ের বাড়ির শতাধিক সদস্য শ্বশুর বাড়ির সদস্যদের গ্রেপ্তার পাশাপাশি জামাইয়ের ফাঁসির দাবি তুলে থানা ঘিরে বিক্ষোভ দেখালেন।

জানা গিয়েছে, তিন বছর আগে দাসপুর থানার গোপীগঞ্জের বাসিন্দা নাসির হোসেনের সঙ্গে ঘাটাল থানার কাজীরহাটের বাসিন্দা মনীষা খাতুন এর বিয়ে হয়। নাসির পেশায় স্বর্ণশিল্পী, কর্মসূত্রে অন্ধ্রপ্রদেশের গুন্তুর শহরে থাকে। মহিলার দাদা সাবির আলীর অভিযোগ বিয়ের পর থেকে প্রায়ই তার বোনের উপরে অত্যাচার চালাত শ্বশুরবাড়ির লোকজন, মারধরের পর বাপের বাড়ি থেকে টাকা পয়সার আনার জন্য চাপ দেওয়া হতো। এক মাস আগে স্ত্রী মনীষা ও বছর ১ এর পুত্র জিসান কে সঙ্গে করে অন্ধ্রপ্রদেশের গুন্তুর শহরে যায় জামাই। সেখানে তার একটা ভাড়া বাড়িতে থাকতো, সপ্তাহ খানেকআগে সেই পুরনো বাড়িটি ছেড়ে নাসির নতুন একটি ভাড়া বাড়িতে উঠে ছেলে ও বউকে সঙ্গে নিয়ে। নতুন বাড়িতে ওঠার বিষয়টি বাপের বাড়ির লোককে জানানো হয়নি।গত ২৬ শে সেপ্টেম্বর রাতে নাসির ফোন করে বাপের বাড়ির লোককে জানায় যে তার স্ত্রী মনীষা আত্মহত্যা করেছে! মেয়ের দাদা সাবির আলীর অভিযোগ নতুন বাড়িতে নিয়ে গিয়ে জামাই নাসির হোসেন ও নাসিরের দাদা শেখ মনিরুল আলি দুজনে মিলে তার বোন মনীষাকে খুন করেছে।

ছেলের পরিবার এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে। তাদের দাবি দীর্ঘদিন ধরে মনীষার সঙ্গে তার জামাইবাবুর অবৈধ সম্পর্ক ছিল। সেই কারণেই মনীষাকে একমাস আগে বিদেশে নিয়ে যায় নাসির। তারপরেও জামাইবাবুর সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ রাখে মনীষা। ২৬ তারিখ নাসির ফোনটি কেড়ে নেওয়ার ফলে মনীষা আত্মহত্যা করেছে বলে তাদের দাবি।

 

ঘাটাল মহকুমার সমস্ত আপডেট তে যুক্ত হন আমাদের সাথে!

‘স্থানীয় সংবাদ’ •ঘাটাল •পশ্চিম মেদিনীপুর-৭২১২১২ •ইমেল: [email protected] •হোয়াটসঅ্যাপ: 9933998177/9732738015/9932953367/9647180572/9434243732 আমাদের এই নিউজ পোর্টালটি ছাড়াও ‘স্থানীয় সংবাদ’ নামে একটি সংবাদপত্র, MyGhatalমোবাইল অ্যাপ এবং https://www.youtube.com/SthaniyaSambad ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে।