তৃণমূলের নতুন জেলা কমিটিতে দাসপুর থেকে সভাপতি?

নিজস্ব সংবাদদাতা, স্থানীয় সংবাদ, ঘাটাল: আর কিছু দিনের মধ্যেই তৃণমূলের জেলা কমিটিগুলির ভৌগলিক এলাকা কমিয়ে ফেলা হবে। বর্তমানে জেলার প্রশাসনিক তথা রেভিনিউ জেলার এলাকা ধরেই দলের জেলা কমিটি গঠিত হয়ে আসছে। এবার থেকে তা আর হবে না। বিজেপির মতো এক একটি লোকসভা এলাকাকে তৃণমূল সাংগঠনিক জেলা করবে। এর ফলে তৃণমূলের  পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা কমিটিকে ভেঙে দুটি জেলা কমিটি করা হবে। একটি মেদিনীপুর লোকসভা সাংগঠনিক জেলা কমিটি অন্যটি ঘাটাল

লোকসভা সাংগঠনিক জেলা কমিটি। ঘাটাল লোকসভা জেলা কমিটির মধ্যে থাকবে সাতটি বিধানসভা। ঘাটাল, চন্দ্রকোণা,দাসপুর, কেশপুর, ডেবরা, পিংলা এবং সবং বিধানসভা। আগের মতোই ব্লক ও অঞ্চল কমিটিগুলি থেকে যাবে।
দল ‘এক ব্যক্তি এক পদ’ নীতি অবলম্বন করলে   তৃণমূলের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা কমিটির সভাপতি তথা পিংলার বিধায়ক অজিত মাইতি সভাপতির পদে থাকতে পারবেন না। তাই ঘাটাল লোকসভা সাংগঠনিক জেলার সভাপতি হতে

পারেন দাসপুর-২ ব্লকের এক নেতা। রাজ্য নেতৃত্ব তাঁকেই  জেলা সভাপতির দায়িত্ব দিতে চাইছেন বলে বিশেষ সূত্রে জানা গিয়েছে। যদিও ‘এক ব্যক্তি এক পদ’ হলে তিনিও হওয়ার কথা নয়। তাঁকে সেই পদ থেকে পদত্যাগ করেই জেলা সভাপতির পদ গ্রহণ করতে হবে। কিন্তু জেলার এক নেতা বলেন, তৃণমূলের রাজ্য নেতৃত্ব ‘এক ব্যক্তি এক পদ’ নীতির দিকে এগোলেও এই মুহূর্তে সব ক্ষেত্রে ‘এক ব্যক্তি এক পদ’ এই নিয়ম জারি রাখতে পারবে না। বেশ কিছু ক্ষেত্রেতার ব্যতিক্রম হবে। তাই দাসপুর-২ ব্লকের ওই নেতার ক্ষেত্রে যে ব্যতিক্রম হবে না এমনটা জোর দিয়ে বলা যাবে না।
অন্য দিকে  জেলা কমিটির সভাপতি হিসেবে ঘাটাল থেকে প্রাক্তন বিধায়ক শঙ্কর দোলইয়ের নাম শোনা যাচ্ছে। শঙ্করবাবু ওই দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে বলে দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে। কারণ হিসেব মতো তিনি এখন কোনও পদে নেই। ‘এক ব্যক্তি এক পদ’  এই নিয়মটি তাঁর ক্ষেত্রে ম্যাচ করে যাবে। জেলার অনেক নেতাও শঙ্করবাবুর নামটি রাজ্যে এবং আইপ্যাকের কাছে সুপারিশ করেছে বলে জানা গিয়েছে।

ঘাটাল মহকুমার সমস্ত আপডেট তে যুক্ত হন আমাদের সাথে!

‘স্থানীয় সংবাদ’ •ঘাটাল •পশ্চিম মেদিনীপুর-৭২১২১২ •ইমেল: [email protected] •হোয়াটসঅ্যাপ: 9933998177/9732738015/9932953367/9647180572/9434243732 আমাদের এই নিউজ পোর্টালটি ছাড়াও ‘স্থানীয় সংবাদ’ নামে একটি সংবাদপত্র, MyGhatalমোবাইল অ্যাপ এবং https://www.youtube.com/SthaniyaSambad ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে।